Home উৎসব "তারকেশ্বরে ছোট মাকে ছাড়া বিসর্জন দেওয়া যায় না বড় মাকে" পুজোয় কেন...

“তারকেশ্বরে ছোট মাকে ছাড়া বিসর্জন দেওয়া যায় না বড় মাকে” পুজোয় কেন এমন প্রথা? জেনে নিন

ছোট মাকে ছাড়া বিসর্জন দেওয়া যায় না বড় মাকে, বালিগড়ির দুই বোনের পুজোয় ভিড় করেন বহু মানুষ

তারকেশ্বর থানার বালিগোড়ি(১) পঞ্চায়েত এলাকায় দুই বোনের পুজো দেখতে ভিড় করেন হাজার হাজার মানুষ। কালীপুজোর অমাবস্যায় মনস্কামনা পূরণে হাজার হাজার মানুষ মায়ের পুজো দেখতে আসেন।



বালিগোড়ির বড় মায়ের মন্দির আনুমানিক ২৫০ বছরের পুরনো। এই মন্দিরের পুরোহিত শান্তনু চোংদার। বংশানুক্রমিক ভাবে তিনি এই পুজো করে আসছেন। আগে বালিগোড়ির ২২ নং গেটের কাছে পুজো হতো বড় মায়ের পুজো হতI



তারপরে দত্তবাড়ির কর্তারা স্বপ্নাদেশ পাওয়ায় সেখানে মন্দির গড়ে তোলেন, যেখানে লক্ষ্মীনারায়ণ দত্ত ও কটিরাম দত্তের উত্তরসূরীরা পুজো দেন। পুজোর দিন পরিবারের সকলে একত্রিত হয়। বড় মায়ের পুজো শুরু হওয়ার পর সেখানে নিয়মনিষ্ঠা মেনে শুরু হয় ছোট মায়ের পুজো।



মায়ের মূর্তি তৈরীর সময় সারাদিন অন্নভোগ মুখে না তুকে মূর্তি তৈরী করতে হয়। ছোট মায়ের পুজো করতেন তপসিলি জাতি, উপজাতির মানুষেরা৷ শোনা যায় একবার ছোটমায়ের পুজো সম্ভব হয়নি, সেবার কিছুতেই বিসর্জনের জন্য বড় মায়ের মূর্তি তোলা যায়নি, অগত্যা ছোট মায়ের কাঠামো আনার পরই বিসর্জন দেওয়া সম্ভব হয়। ছোট কালী মা এবং বড় কালী মায়ের বিসর্জন দেখতে ভিড় করে প্রচুর মানুষ।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...