Home জেলার খবর শ্রীরামপুরের নামের উৎস নিয়ে সংশয় আজও! শ্রীরামপুর নামের পিছনে কি ইতিহাস রয়েছে?

শ্রীরামপুরের নামের উৎস নিয়ে সংশয় আজও! শ্রীরামপুর নামের পিছনে কি ইতিহাস রয়েছে?

শ্রীরামপুরের নামের সাথেই ওতোপ্রোতো ভাবে জড়িয়ে আছে শ্রীরামপুর শ্রীরামপুর মিশন প্রেসের নাম। আর মাহেশের রথ তা ছাড়া যেন অসম্পূর্ণ শ্রীরামপুর।

বাংলার সবচেয়ে প্রাচীন আর ভারতের দ্বিতীয় প্রাচীন রথযাত্রা হল মাহেশের রথ।
আধুনিক বাংলা সাহিত্যের সাথে জড়িয়ে আছে উইলিয়াম কেরির শ্রীরামপুর মিশন প্রেস। এছাড়াও শ্রীরামপুর বিখ্যাত ভারতের প্রথম লাইব্রেরি, সংস্কৃতি চর্চা, প্রথম কাগজকলের জন্য। শ্রীরামপুর কলেজের সাথেও
জড়িয়ে আছে শ্রীরামপুরের সংস্কৃতি।



মনসামঙ্গল ধারার সাহিত্য মনসাবিজয় কাব্য, যার লেখক বিপ্রদাস পিপিলাই , ১৫ শতকে লেখা এই কাব্যে শ্রীরামপুর অঞ্চলের আকনা এবং মাহেশ জায়গার দুটির উল্লেখ আছে। এছাড়াও চৈতন্যদেবের লেখার মধ্যেও চাতরার নাম পাওয়া যায়।


টেভার্নিয়ারের লেখাতেও পাওয়া যায় মাহেশের রথযাত্রার বিবরণ । আবুল ফজলের লেখা ‘আইন-ই-আকবরি’ যা মুঘল সম্রাট আকবরের সময়কালে লেখা তাতেও শ্রীরামপুরের উল্লেখ আছে। আবার শাহজাহানের আমলে লেখা সম্রাট আবদুল হামিদ লাহোরির ‘বাদশাহনামা’ বইতে শ্রীরামপুরের উল্লেখ ছিল শ্রীপুর নামে।



তবে কোথা থেকে শ্রীরামপুর নামের আবির্ভাব সেই নিয়ে মতভেদ আজও বর্তমান৷ একাংশের মতে ১৭৫২ সালে শেওড়াফুলির রাজা মনোহরচন্দ্র রায় শ্রীপুরে একটি রামসীতার মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন । তাঁর ছেলে রামচন্দ্র শ্রীপুর, গোপীনাথপুর আর মনোহরপুর, এই তিনটে মৌজা কয়েকজন ব্রাহ্মণের নামে দেবসেবার জন্য দিয়ে দেন, সেই থেকে এই শ্রীপুর থেকে এই অঞ্চলের নাম শ্রীরামপুর হয়েছে মনে করেন অনেকে।



১৮ শতকের মধ্যভাগে যখন ইউরোপের বণিকরা বাংলায়, সেইসময় দিনেমার কোম্পানি সোয়েটম্যান নামে এক প্রতিনিধিকে প্রেরণ করে দক্ষিণ ভারত থেকে বানিজ্য করার অনুমতি নেওয়ার জন্য। নবাব আলিবর্দি খাঁর কাছে অনুমতি নিতে আসা সোয়েটম্যান ১৭৫৫ সালে শ্রীপুরে তিন বিঘে এবং আকনায় সাতান্ন বিঘে জমি কিনে কুঠি বসান, এরপর শেওড়াফুলির জমিদারের থেকেও আরও বেশ কয়েক বিঘা জমি অধিগ্রহণ করেন ডিনেমার বণিকরা।সেই জায়গার নাম দেওয়া হয় ফ্রেডরিক্সনগর। ডেনমার্কের রাজা পঞ্চম ফ্রেডরিকের নামানুসারে।



ফ্রেডরিক্সনগর ছিল অনেক আধুনিক শহর । ১৮৪৫ সালে ডেনিশদের থেকে এই শহর কিনে নেয় ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি। । ব্রিটিশদের হাতে এই শহর আসলে শহরের নাম দেওয়া হয় শ্রীরামপুর। ১৮৪৫ সালে শ্রীরামপুর পরিণত হয় হুগলি জেলার মহকুমায় পরিণত হয়েছিল এবং শ্রীরামপুর পুরসভা গড়ে ওঠে ১৮৬৫ সালে।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সায়ন্তন ঘোষাল পরিচালিত ওয়েব সিরিজ “গোরা-য়” এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় ‘পায়েল দে’….

আবারও ওয়েব সিরিজ-এ অভিনেত্রী পায়েল দে। হইচই এর ওয়েব সিরিজ ইন্দু দিয়েই গত বছরেই ওয়েব সিরিজের দুনিয়াতে পথ চলা শুরু হয়েছিল অভিনেত্রী পায়েল দে-র।...

বেস্ট শর্ট-ফিল্মের পুরস্কার জিতে নিলো অরূপ সেনগুপ্ত পরিচালিত শর্ট-ফিল্ম ‘চার এক্কে প্যাঁচ’

বছর শেষ হতে হাতে গোনা আর কয়েকটা দিন বাকি। চারিদিকে চলছে খুশির আমেজ. গত ২ বছরের পরিস্তিতি কাটিয়ে সাধারণ মানুষ আবার সিনেমা হলমুখী হচ্ছে।...

নতুন প্রজন্মের পরিচালকদের অনুপ্রাণিত করার জন্য আয়োজন করা হলো ভার্চুয়াল চলচ্চিত্র উৎসব

বিশ্বে বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে থাকা নতুন প্রজন্মের চলচ্চিত্র পরিচালকদের অনুপ্রাণিত করার জন্য আয়োজন করা হলো ভার্চুয়াল চলচ্চিত্র উৎসব মাই সিনেমা গ্লোবাল চলচ্চিত্র উৎসব। দ্বিতীয়...

মায়া এন্টারটেইনমেন্ট এর ব্যানারে মুক্তি পেতে চলেছে নতুন মিউজিক ভিডিও ‘ভুল না পায়ে’…

রাত পোহালেই বড়দিন। আর এই বড়দিনেই চন্দ্রানী দাসের প্রযোজনায় এবং মায়া এন্টারটেইনমেন্ট এর ব্যানারে মুক্তি পেতে চলেছে নতুন মিউজিক ভিডিও 'ভুল না পায়ে'। এই...