Home খেলা "চিরকালই খোচা খাওয়া ইস্টবেঙ্গলও ভয়ংকর" খুলছে আইএসএলের দরজা

“চিরকালই খোচা খাওয়া ইস্টবেঙ্গলও ভয়ংকর” খুলছে আইএসএলের দরজা

অবশেষে ক্রেতা পেল ইস্টবেঙ্গল, খুলছে আইএসএলের দরজা

হতাশা কাটিয়ে ফের লাল হলুদ ম্রিয়মান মশালের আলো নতূন উদ‍্যমে জেগে ওঠার সম্ভাবনা প্রবল। সব ঠিকভাবে চললে, খুব শীঘ্রই ক্রেতা নিয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী মোহনবাগানের সঙ্গে আইএসএলের লিগে নামতে চলেছে ইস্টবেঙ্গল। সুত্রে খবর, শ্রী সিমেন্টকে ক্রেতা হিসেবে পেয়েছে ১০০ এর দোরগোড়ার ইস্টবেঙ্গল। ফলে আইএসএলের সামনে ফের লাল হলুদের উজ্জ্বল হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

মোহনবাগান আগেই আইএসএল টুর্নামেন্টে চলে গেছিল। এবার মেগা টুর্নামেন্টে আসছে ইস্টবেঙ্গল। ফলে দুই প্রধানের মাঠে লড়াই দারুন আকর্ষণীয় হবে ফুটবলপ্রেমীদের কাছে। গ‍্যালারি থেকে আবার সেই গগনভেদী ধ্বনি উঠবে, দেখা যাবে সমর্থকদের আবেগের বিষ্ফোরণ।

টুর্নামেন্টের পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ফূটবল স্পোর্টস ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের পক্ষ থেকে আগেই দশ দলকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল এবারে টুর্নামেন্টের সংখ‍্যা বাড়ানো হবে না। অর্থাৎ ইস্টবেঙ্গলের খেলার আশা প্রায় ছিল না। এই আবহে সমর্থকদের মনে হতাশা বাড়তে থাকে। জন্ম নেয় ক্ষোভ। কর্তাদের স্পনসরশিপ নিয়ে উঠে আসে একাধিক প্রশ্ন।
তবে চিরকালই খোচা খাওয়া ইস্টবেঙ্গলও ভয়ংকর। হারার আগেও মানেনা হার। এক্ষেত্রেও তার বিকল্প হয়নি। সাধ‍্যের বাইরে চলে যাওয়া ম‍্যাচকেই কর্তারা ফিরিয়ে আনেন মমতা ব‍্যানার্জির সহায়তায়। মমতার অনুরোধে ইস্টবেঙ্গলের লগ্নির জন‍্য এগিয়ে আসেন মুকেশ ও নীতা আম্বানিরা। কয়েকটি সংস্থার সঙ্গে কথা বললেও তা বেশীদূর এগোয় না। অবশেষে শ্রী সিমেন্ট এর সঙ্গে চুক্তি পাকা হয় লাল হলুদের।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...