Home জেলার খবর এবছর প্রথম শ্রাবণ মাসে খোলা হবে না তারকেশ্বর মন্দির... এবার জনশূন্য তারকেশ্বর...

এবছর প্রথম শ্রাবণ মাসে খোলা হবে না তারকেশ্বর মন্দির… এবার জনশূন্য তারকেশ্বর চত্বর….

এবছর শ্রাবণের প্রথম সোমবারেও জনশূন্য ছিল তারকেশ্বর মন্দির চত্বর

ভক্তদের ভিড়ে জমজমাট তারকেশ্বর চত্বর বর্তমানে জনশূন্য, শ্রাবনের প্রথম সোমবারে প্রত্যেকবারের মতো ভিড় তো দূরের কথা, অফিস যাত্রী ছাড়া বাস স্ট্যান্ডে লোকের দেখা নেই।

করোনা সংক্রমণের সতর্কতায় প্রায় দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ মন্দির। তারকেশ্বর মন্দির আনলকের দ্বিতীয় পর্বে খোলা হলেও মন্দিরের কাছে এলাকায় কয়েকজনের শরীরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় ফের বন্ধ হয়ে যায় মন্দির।

কয়েকশ লোক জল নিয়ে রবিবার এবং সোমবার তারকেশ্বরমুখী হলেও তাঁরা তারকেশ্বর মন্দিরে না গিয়ে তার অনেকটা আগে লোকনাথের শিবমন্দিরে জল ঢেলে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন।

শ্রাবণমাসে শ্রাবণীমেলায় কয়েকহাজার মানুষ মেলায় পসরা নিয়ে বসেন কিন্তু এবার মেলা বন্ধ হওয়ায় কাজ হারিয়েছেন সেইসব মানুষ। বৈদ্যবাটি-শেওড়াফুলি এলাকা থেকেই লক্ষ লক্ষ পূন্যার্থী প্রতিবছর জল তোলেন । অন্যান্য বছর এই সময় বৈদ্যবাটি, শেওড়াফুলি থেকে তারকেশ্বর পর্যন্ত কয়েক হাজার দোকান বসে রাস্তায়, সেসব কিছুই নেই এবার। খাবার হোক না বিভিন্ন জিনিস বা, বাঁক বিক্রি সকলেরই উপার্জন বন্ধ করোনার জন্য।

চন্দন মুখোপাধ্যায় যিনি বাঁক ও জলযাত্রীদের পোশাকের দোকানের এক বিক্রেতা তিনি বলেন করোনার দাপটে এবছর তারা মাছি তাড়াচ্ছে। প্রতিবছর যেমন বিক্রি হয় এবছর তার এক কনাও নেই।

প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও
শুনশান গঙ্গার ঘাটে
শ্রাবন মাসে জল এসেছিলেন হলদিয়ার দিব্যেন্দু দাস। কিন্তু এবছর সবটাই হয়েছে অন্যরকম। পায়ে হেঁটে নয়, এবার গাড়ি ভাড়া করে এসে, বৈদ্যবাটি নিমাইতীর্থ ঘাট থেকে জল তুলে তিনি লোকনাথের উদ্দেশে রওনা হন।

তারকেশ্বরে চৈত্র এবং শ্রাবণে যাত্রীদের ভিড় থাকে প্রচন্ড । তবে করোনা আসার পর গত চৈত্রেও ধর্মীয়স্থান বন্ধ থাকায় ব্যবসা মন্দা ছিল। তবে সেই একই অবস্থা যে শ্রাবনেও থাকবে ভাবেনি অনেকেই।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

মুক্তি পেলো DEZINIAX STUDIOS -এর প্রযোজনায় স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি “হুলো & মেনি”…

বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দূর্গা পুজো. আর দূর্গা পুজোয় প্রেম হবে না তা কি হয়. এবার পুজোয় তবে "হুলো আর মেনির প্রেম হয়ে যাক? অবাক...

পুজোর মরশুমে ‘মনের মানুষ’ দেবতনু রাজ করতে চলেছে সকলের “হৃদ মাঝারে”!

বর্তমানে পরিস্তিতি উদ্বেগ জনক হলেও বাঙালীরা ৩৬৫ দিন অপেক্ষা করে থাকে এই ৪টি দিনের জন্য। উমা ঘরে আসার সাথে সাথে চারিদিক খুশির আমেজে ভরে...

দাম্পত্য জীবনের প্রথম দূর্গা পুজো! কেমন কাটাচ্ছে অভিনেতা আরুষ এবং পায়েল?

এবিও পত্রিকার তরফ থেকে প্রথমেই আরুষ এবং পায়েল কে জানাই শুভ শারদীয়ার প্রীতি ও শুভেচ্ছা। গত বছর ২৭ নভেম্বর ২০২০ তে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছে...

Klikk এর পক্ষ থেকে মুক্তি পেলো আরো একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি “আগমনী”…

বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দূর্গা পূজা। ৩৬৫ দিন বাঙালীরা অপেক্ষা করে থাকে এই ৪টি দিনের জন্য। উমা ফেরে তার মায়ের ঘরে। চারিদিক মেতে ওঠে উৎসবের...