Home ফিচার বিশ্বাসঘাতকতার অভিশাপ মেটেনা কখনও। মির্জাফর এসেছিলেন চুঁচুড়াতে এবং বর্ধমানে

বিশ্বাসঘাতকতার অভিশাপ মেটেনা কখনও। মির্জাফর এসেছিলেন চুঁচুড়াতে এবং বর্ধমানে

বহুমূল্য সম্পদের সহজ প্রাপ্তি বলতে এই বিশ্বাস। কিন্তু যে এটার সঠিক মর্যাদা দিতে পারেনা তাকে ঘৃনার চোখে দেখে আর তাকে বিশ্বাসঘাতক বলে ডাকা হয়। এমনকি মিরজাফর বলেও ডাকা হয়।
এই ভারতবর্ষ বহু গুণী মানুষের জন্মস্থল। প্রশ্ন জাগে এই পবিত্র ভারতের মাটিতে কিভাবে জন্ম হলো এই বর্বর নিমকহারাম মিরজাফরের? কিন্তু না, এই ভারতের মাটিতে জন্ম হয়নি তাঁর। পারস্যে জন্ম মিরজাফরের। তারপর সে ভারতে আসে।



প্রথমে মিরজাফর নবাব আলিবর্দি খানের সেনাপতি ছিলেন এবং সবথেকে বিশ্বস্থ মানুষ ছিলেন। নবাব আলিবর্দি খান মুগ্ধ ছিলেন মিরজাফরের দুরদর্শিতায়। কিন্তু কিছু বছর পরেই মিরজাফর বর্ধমানে বসে নবাব আলিবর্দি খান কে হত্যা করে তাঁর সাম্রাজ্য ও সিংহাসন দখলের ষড়জন্ত্র করতে শুরু করে দেন মিরজাফর। কিন্তু তার কুপরিকল্পনা সফলতা লাভ না করায় মনের ভিতরেই ফুঁসতে থাকেন মীরজাফর। এরপর নবাবের উত্তরসূরি হিসেবে যখন সিরাজ উল দৌল্লা নবাবের সিংহাসনে বসেন তখন থেকেই তিনি পুণরায় ফন্দি আঁটতে শুরু করে দেন যে কিভাবে সিরাজ-এর থেকে সিংহাসন কেড়ে নিয়ে নিজে বসবেন।




তিনি গোপনে ব্রিটিশ সাহেব লর্ড ক্লাইভের সাথে মেলামেশা শুরু করেন এবং নবাবের দরবারের গোপন তথ্য ব্রিটিশদের হাতে তুলে দিতে থাকেন। পলাশির যুদ্ধের সময় নবাবের গোপন পরিকল্পনা ও রণনীতিও ব্রিটিশদের কাছে ফাঁস করে দেন তিনি। ফলপ্রসূত ব্রিটিশদের কাছে নবাব সিরাজ পরাস্থ হলে ব্রিটিশরা মীরজাফর কে ব্রিটিশ অধিকৃত বাংলার নবাব এর স্বীকৃতি দেন এবং তিনি নবাবের সিংহাসনে বসেন।




কিন্তু কয়েক বছরের মধ্যেই তার কার্যকালাপ ও গতিবিধিতে তিক্ত হয়ে ব্রিটিশ সরকার তাঁকে পদচ্যুত করেন এবং মীরজাফরের জামাতা মীর-কাশিম কে বাংলার নবাব করেন।
মীরজাফর নিজের ক্ষমতার পুণরুত্থানের জন্য চলে আসেন হুগলীর চুঁচুড়াতে। এখানে এসে তিনি ডাচ সৈন্যদের সাথে মিলে ব্রিটিশদের সাথে লড়াই এর পরিকল্পনা করতে শুরু করে দেন এবং চুঁচুড়া যুদ্ধের পটভূমি তৈরি করেন…
পরবর্তী সময় ব্রিটিশ সেনা



পুণরায় তাঁকে নবাবের সিংহাসনে বসান, এবং মৃত্যু পর্যন্ত তিনি নবাবের আসনেই ছিলেন। আজও তাঁর বাসভবন নিমক হারাম দেউরি নামে পরিচিত।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...