Home সেলিব্রিটি জণ্মদিনে জেনে নিন মিথুন চক্রবর্তীর বেপারে অনেক অজানা তথ্য

জণ্মদিনে জেনে নিন মিথুন চক্রবর্তীর বেপারে অনেক অজানা তথ্য

বাংলাদেশের বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন গৌরাঙ্গ চক্রবর্তী।
আজ তাঁর ৬৮ তম জন্মদিন।
‘ওরিয়েন্টাল সেমিনারি’তে শিক্ষাজীবন শুরু করেন তিনি।তিনি বরিশাল জেলা স্কুলে পড়েছিলেন।পরবর্তীতে কলকাতার স্কটিশ চার্চ কলেজে রসায়নে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন।তখনও জানতেন না তিনিই হয়ে উঠবেন ডিস্কো ড্যান্সার মিঠুন।স্বভাবতই জোড়াবাগান থেকে স্বপ্নের শহর মুম্বইয়ের যাত্রাটা মসৃণ ছিল না বঙ্গসন্তানের।তবুও নিজেকে নিয়ে গিয়েছেন উচ্চতার শিখরে।মৃণাল সেনের ‘মৃগয়া’ ছবির মাধ্যমে সেলুলয়েডে আত্মপ্রকাশ তাঁর।অসামান্য অভিনয় নৈপুণ্যের জন্য এ ছবির মাধ্যমে তিনি সেরা অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ ক’রে সেই যে রূপালী পর্দায় যাত্রা শুরু সেটা চলেছে দীর্ঘদিন ধরে।ফিল্ম অ্যাণ্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইণ্ডিয়া (এফটিআইআই) থেকে গ্র্যাজুয়েশন করেন তিনি এরপর।অভিষেকের পরই তিনি ‘দো আনজানে'(১৯৭৬) এবং ‘ফুল খিলে হ্যায় গুলশান গুলশান'(১৯৭৭) ছবি দু’টোয় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করলেও পেলেন না গুরুত্ব।
জনপ্রিয়তার শিখরে পৌঁছোন ‘ডিস্কো ডান্সার’ ছবির মুক্তির পর।বাপি লাহিড়ীর সুরে তাঁর নৃত্যকৌশল জন্ম দিন এক অন্য ঘরানার।একইরকম থিম ‘ড্যান্স-ড্যান্স’ সহ অনেক সফল ছবি তৈরি হলো।বলিউডের এই ডান্সার ছাপিয়ে যান দেশের বাইরেও।রাজ কাপুরের পর মিঠুনই সেই অভিনেতা যিনি বিদেশে এতখানি জনপ্রিয়তা পান।
অভিনয়ের জন্য তিন-তিনবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র উৎসব।এছাড়াও ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডও পেয়েছেন দু’বার।’তাহাদের কথা’,’অগ্নিপথ’,’জল্লাদ’,’স্বামী বিবেকান্দ’-এর মতো ছবি রয়েছে এই পুরস্কারের তালিকায়।
তবে,আমার পছন্দের ছবি ‘ওহ মাই গড'(২০১২) এসেছে আরও পরে,একবিংশ শতকের শুরুতে।
সাড়ে তিনশোরও বেশি ছবিতে অভিনয় করেছেন মিঠুন।বাংলা,হিন্দি ছাড়াও তামিল,তেলুগু,কন্নড়,ভোজপুরি, ওড়িয়া,পাঞ্জাবি,মারাঠি ছবিতে দেখা গিয়েছে তাঁকে।
বাংলা ছবিতে ১৯৭৮ সালে নদী থেকে সাগরের পর,কলঙ্কিনী কঙ্কাবতী, ত্রয়ী,অন্যায় অবিচারের মত হিট,২০০০ সালের পর অন্যধারার ছবিতেও পেয়েছি তাঁকে,ঋতুপর্ণ ঘোষ ‘তিতলি’ ছবির জন্য তাঁকেই বেছেছেন,২০০৬ এ আবার বুদ্ধদেব দাশগুপ্তর কালপুরুষ ছবির জন্য সেরা অভিনেতার পুরস্কারও পাচ্ছেন,গৌরব পান্ডের শুকনো লংকায় তিনি তো চিনু নন্দীই।আবার ফাটাকেস্টর মত দমদার চরিত্রেও বয়সের ছাপ বুঝতে দেননি,চুটিয়ে পা মিলিয়েছেন হাঁটুর বয়সী নায়িকাদের বিপরীতে বহু ছবিতে।ভার্সটিলিটিই অন্যরকম।শেষদিকে বাংলায় আবার লে হালুয়া লে,আমি সুভাষ বলছি,নোবেল চোর,নকশাল,এক নদীর গল্পের মত ছবিতে তাঁকে দেখেছি এই নিরহংকারী অভিনেতাকে।


ওহ মাই গড ছাড়াও ২০০০ র পর হিন্দিতে সুভাষ ঘাইয়ের যুবরাজসহ নানা ছবিতে দেখতে পেয়েছি তাঁকে।’তাসখন্দ ফাইল’ ছবিতেই বলিউডে শেষবার দেখেছি তাঁকে।তবে অপেক্ষায় আছি..যদিও শারীরিক অসুস্থার কারণে সিনেমা জগৎ থেকে প্রায় নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন তিনি।বিগত কয়েক বছর বাংলা সিনেমায় দেখা যায়নি তাঁকে।তবে ‘সহজ পাঠের গপ্পো’ খ্যাত পরিচালক মানস মুকুল পালের দীনেশ গুপ্তর বোয়োপিকে বাংলা ছবিতে ফিরতে পারেন এই নায়ক এরকম শুনেছিলাম।

জেনে নিন মিথুন চক্রবর্তীর বেপারে অনেক অজানা তথ্যপুরস্কার :
১৯৭৬ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার সেরা অভিনেতা মৃগয়া
১৯৯০ ফিল্মফেয়ার পুরস্কার সেরা সহঃ অভিনেতা অগ্নিপথ
১৯৯২ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার সেরা অভিনেতা তাহাদের কথা
১৯৯৫ ফিল্মফেয়ার পুরস্কার সেরা খলনায়ক জল্লাদ
১৯৯৬ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার সেরা সহঃ অভিনেতা স্বামী বিবেকানন্দ
(সৌজন্যে:উইকিপিডিয়া)
প্রাক্তন রাজ্যসভার সাংসদকে দেখা গিয়েছে টেলিভিশন সঞ্চালক হিসাবেও।হিন্দিতে জি টিভির ‘ড্যান্স ইন্ডিয়া ড্যান্স’,বাংলায় দাদাগিরির একটা সিজনে।
মিঠুন চক্রবর্তী ‘রয়েল বেঙ্গল টাইগার্স’ দলের সহ-স্বত্ত্বাধিকারী ছিলেন।পরবর্তীতে দলটি ভারতীয় ক্রিকেট লীগে আর অংশগ্রহণ করেনি ও পরিত্যক্ত ঘোষিত হয়।
১৯৭৯ তে বলিউডের সাবেক অভিনেত্রী কিশোর কুমারের প্রাক্তন(তৃতীয়) স্ত্রীর সঙ্গে পরিণয়ে আবদ্ধ হন।তাঁদের চার সন্তান।অনেকগুলো সূত্র দাবী করে যে,মিঠুন অভিনেত্রী শ্রীদেবী’র সাথে প্রণয়ের সম্পর্ক ছিলেন।১৯৮৬ থেকে ১৯৮৭ সাল পর্যন্ত সম্পর্ক বজায় ছিল যা শ্রীদেবী পরবর্তীতে সম্পর্ক ছেদ করেন,শোনা যায় তাঁরা নাকি গোপনে বিয়েও করেছিলেন।যোগীতা-মিঠুন দম্পতির জ্যৈষ্ঠ পুত্র মিমো(মহাক্ষয়)-র জিমি(২০০৮) ছবির মাধ্যমে বলিউডে অভিষেক হয়।দ্বিতীয় পুত্র রিমো ফির কভি ছবি দিয়ে পরিচালনায় নেমেছেন।বাকি দুই মেয়ে নমসী,দিশানী পড়াশোনা ক’রে।
কিছুদিন আগে চিকিৎসার জন্য বিদেশেও গিয়েছিলেন বলিউডে ‘ব্যাডবয়’।কখনও স্পটলাইটে তো কখনও আড়ালে,মিঠুন চক্রবর্তী নয় থেকে নব্বই সকলেরই ‘মিঠুনদা’।
অভিনেতার দীর্ঘ সুস্থ জীবন ও ওনার থেকে আরও ভালো ছবি কামনা করি।

আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন: https://facebook.com/abopatrika/

- Advertisment -

জনপ্রিয়

Flixbug এর পক্ষ থেকে মহৎ উদ্যোগ! জানালেন দেব চক্রবর্তী…

চারিদিকের পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগ জনক। করোনা অতিমারীর ভয় গ্রাস করেছে মানুষকে। এই ভয়াবহ পরিস্থিতির শিকার সর্ব স্তরের মানুষ। এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেখা...

এ.কে.Ray তৈরীর পেছনেও রয়েছে কিছু কাহিনী! জানালেন অরূপ, সুপ্রতীম…

সম্প্রতি ABO Ptrika কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অরূপ জানান তার প্রথম শর্ট ফিল্ম এ.কে.Ray খুব শীঘ্রই ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল এবং OTT প্লার্টফর্ম এ মুক্তি পেতে চলেছে।...

কাকদ্বীপে অসহায় মানুষদের হাতে ত্রান তুলে দিলেন “বং গাই”(কিরণ দত্ত)…

মানুষের মনোরঞ্জনের মাধ্যম সিরিয়াল, সিনেমার পাশাপাশি ইউটিউবও বিনোদনের অনেকখানি জায়গা দখল করে রেখেছে. এখন ইউটিউব চ্যানেল গুলোর রমরমা যথেষ্ট বেড়েছে.বাংলার তেমনই এক ইউটিউবার হলো...

সেফ হোম খোলার পর, যীশু সেনগুপ্তের উদ্যোগে ত্রান পৌছালো সুন্দরবনের মানুষের কাছে…

এই করোনা পরিস্তিতিতে অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন অনেক তারকাই. তার মধ্যে অভিনেতা যীশু সেনগুপ্ত একজন. করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য আগেই উদ্যোগ নিয়েছেন যীশু. এবার...