Home বিনোদন লকডাউনের মাঝে ইতিহাস গড়লো "থার্ড আই"-এর "লকডাউন কনসার্ট"

লকডাউনের মাঝে ইতিহাস গড়লো “থার্ড আই”-এর “লকডাউন কনসার্ট”

“বিস্বাদ” শব্দটির স্বাদ গ্রহণ প্রতিটি মানুষ তার নিজ জীবনে কখনো না কখোনো নিশ্চই গ্রহণ করেছেন। কিন্তু সারা পৃথিবীর মানুষের একত্রে এই ‘বিস্বাদের’ স্বাদ গ্রহণের ব্যাপারটা হয়তো এর আগে ইতিহাসের পাতায় দেখা মেলেনি। এমনই একটা সময়ের মধ্যে দিয়ে আমরা এখন দিন কাটাচ্ছি যে সময়ের দীর্ঘনিশ্বাস পরেছে সমাজের সকল শ্রেণীর মানুষের ঘাড়েই। বাদ যায়নি বিনোদন জগতও।
মানুষের চোখ আজ স্থির হয়েছে ঘড়ির কাটায় আর ক্যালেন্ডারের পাতায়, সেখান থেকে একটু মন ঘোরাতে টিভির পর্দায় চোখ রাখলে, সেখানে শুধুই মহামারির রাশি রাশি দুঃসংবাদ। আর যেহেতু মানুষ গৃহবন্দী, সোশাল ডিস্টেনসিং-এর সচেতনতাই  একমাত্র হাতিয়ার তাই বন্ধ শিল্পীদের লাইভ কনসার্ট-ও।
সাধারণ মানুষ যেমন তার প্রিয় শিল্পীদের গান না শুনে থাকতে পারেনা, তেমনই শিল্পীদেরও দমবন্ধ হয়ে আসে তার শ্রোতাদের গান শোনাতে না পারলে। তো এই দুই ক্রিটিক্যাল সিচুয়েশনের সমাধান করতে এগিয়ে এলেন “ত্রিনয়ন”। না না এটা কোনো দেবতার ত্রিনয়ন নয় এটা আমাদের সকলেরই পরিচিত ঐশিক পাল এর “ত্রিনয়ন” মানে “থার্ড আই এন্টারটেইনমেন্ট মিডিয়া”।
এই পরিস্থিতির মধ্যে মানুষকে খুশি রাখতে “থার্ড আই” ৩ এপ্রিল থেকে শুরু করে একটি অনলাইন লাইভ কনসার্ট “lockdown concert” যা হয়ত এই বাংলার ইতিহাসে প্রথম এবং সবচেয়ে বড় অনলাইন লাইভ কনসার্ট।  এই কনসার্ট মোট ৫০ টি পর্ব কম্পিলিট করে গত ১১ ই মে সকলের পরিচিত সিধু দা-র গান দিয়ে সমাপ্তি ঘটে। প্রতিদিনের কনসার্টেই ছিলো মানুষের উচ্ছাস দেখার মত। নিজের ঘরে বসেই তার প্রিয় শিল্পীর সাথে আড্ডা দেওয়া তার গান শোনা এই বেপারটাই মানুষের মধ্যে “থার্ড আই” এর এই প্রচেষ্টাকে  সাফল্যের দিকে এগিয়ে নিয়ে গেছে।
এই লাইভ কনসার্টে অংশ গ্রহণ করেছিলেন কলকাতা মুম্বাই-এর অনেক স্বনামধন্য শিল্পীরা। এই লাইভ কনসার্টে কোন কোন শিল্পী অংশ গ্রহণ করেছিলেন আসুন দেখে নেওয়া যাক-
কনসার্টে অংশগ্রহণ করেছিলেন সঙ্গীত শিল্পী সুমেলি চক্রবর্তী, কিঞ্জল চ্যাটার্জি, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য, কেকা ঘোষাল, অনন্যা, খরাজ মুখার্জি, সৌরভ মনি, অরুণাশীষ রায়, সোমদত্তা, গৌরব সরকার, সৌম্য চক্রবর্তী, সপ্তক, সোমতন্দ্রা, দেবদ্বীপ, সুপ্রতিপ, সুজয় ভৌমিক, মিস জোজো, পরমা দাসগুপ্ত, তথাগত সেনগুপ্ত, দেবজিৎ, চন্দ্রিকা, স্নেহা, ঈশানি নাগ, মনীষা কর্মকার, দুর্নিবার, অনীক ধর, গুরুজিৎ, অর্পিতা বিশ্বাস, প্রসেন, রণজয়, পৌষালী, মৌসম, ঋষি, মধুমিতা, অরুণাভ, কুশল পাল, প্রসেন, রাজা হাসান, তৃষা , অম্লান, মাধুরী দে, প্রতিভা পাল, অর্পিতা বিশ্বাস, সৈকত মিত্র, সুমন পন্থী, সমিক পাল, দেবলীনা নন্দী, লক্ষ্য ভাট্টনগর,রাহুল দত্ত, অগ্নিভ, মৌলি ব্যানার্জি, সৈকত মিশ্র , স্নিগ্ধজিৎ ভৌমিক ও সিধু
“থার্ড আই এন্টারটেইনমেন্ট অ্যান্ড মিডিয়ার” কর্ণধার ঐশিক পাল জানান যে মানুষের একঘেয়েমীতে মোড়া জীবনে একটু আনন্দ দিতেই তাদের এই উদ্যোগ। তিনি আরো জানান যে তাদের এই প্রচেষ্টাকে তারা প্রায় ১৫ লক্ষ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে পেরেছেন এবং ৩৯ দিন ধরে চলা এই কনসার্টের মাধ্যমে তারা মানুষের কাছ থেকে যে বিপুল পরিমাণ ভালোবাসা অর্জন করেছেন এটাই তাদের কাছে সবচেয়ে বড়ো প্রাপ্তি। সঙ্গীত শিল্পীরা এভাবেই তাঁদের গানে মুগ্ধ করুক সকল দর্শককে। আর এই দুর্দিনে দর্শকরাও শিল্পীদের পাশে থাকার অঙ্গীকার করুক।
third eye entertainment and media fb page: https://facebook.com/
- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...