Home দেশ পাকিস্থানে ভেঙে ফেলা হলো হিন্দু মন্দির সহ হিন্দু পরিবারের বাড়ি..

পাকিস্থানে ভেঙে ফেলা হলো হিন্দু মন্দির সহ হিন্দু পরিবারের বাড়ি..

*পাকিস্থানে ভেঙে ফেলা হল বহু পুরনো হিন্দু মন্দির ও মন্দির সংলগ্ন বহু হিন্দু পরিবারের বাড়ি*

পাকিস্থানে হিন্দুদের উপর চলছে অত্যাচার, এমন খবর পাওয়া যাচ্ছিল বেশ কিছুদিন ধরেই, সম্প্রতি এক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে দাবি করা হয় পাকিস্তানে হিন্দুদের উপর অত্যাচারের পরিমান বাড়ছে দিন দিন। এবার সেই দাবি সত্যি প্রমাণ করে উঠে আসল এক প্রমাণ।

করাচির লিয়ারি জেলায় স্বাধীনতার আগে থেকে ছিল এক হনুমান মন্দির, সম্প্রতি তা এক প্রোমোটার ভেঙে দিয়েছে বুলডোজার দিয়ে এমনটাই খবর পাওয়া গেছে।
শুধু মন্দিরই ধ্বংস করা হয়নি তার সাথে মন্দির সংলগ্ন প্রায় ২০টি হিন্দু পরিবারের বাড়িও ভেঙে ফেলা হয়েছে বলে জানা গেছে।

অভিযুক্তের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা পরেও নেওয়া হয়নি কোনো ব্যবস্থা।

দেশভাগের বহু পূর্বেই করাচির লিয়ারি জেলায় ওই হনুমান মন্দিরটির পাশে বসবাস ছিল ২০টির বেশি হিন্দু পরিবার৷
মাস কয়েক আগে এক স্থানীয় প্রোমাটার মন্দিরের আশপাশের জায়গা কিনে ওই স্থানে একটি বহুতল তৈরীর পরিকল্পনা করে তবে সেই সময় ওই প্রোমাটার দাবি করেন ওই বহুতল বানানোর জন্য মন্দিরটি ভাঙা হবে না বা এলাকার হিন্দুদেরকেও উচ্ছেদ করা হবে না। তবে লকডাউনে দেখা গেল উল্টো দৃশ্য, মন্দির বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকায় সুযোগ বুঝে ওই প্রোমোটার বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলে মন্দির ও ২০টি হিন্দু পরিবারের বাড়ি।

স্থানীয় হিন্দুরা একজোট হয়ে প্রতিবাদ জানালে বন্ধ করে দেওয়া হয় ওই এলাকায় বহুতলের নির্মাণ কাজ। প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে বিষয়টির নিরপেক্ষ তদন্ত হবে।

ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা মহম্মদ ইরশাদ বালোচ এই প্রসঙ্গে জানান, প্রশাসন সব কিছু জানে তবু চুপ, একটি ধর্মের প্রার্থনাস্থানকে ধ্বংস করে দেওয়া একেবারেই অনুচিত, এই ঘটনায় চুপ থাকা যায় না, তিনি ছোট থেকেই ওখানে পুজো দিতে দেখেছেন মানুষ জনকে, আগে ওখানে দুটো মন্দির ছিল, যার মধ্যে একটি আগে ভেঙে ফেলা হয়, অবশিষ্ট আরেকটি মন্দিরও লকডাউনের সুযোগে ধ্বংস করে দেওয়া হল।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...