Home জেলার খবর চন্দননগরে গঙ্গার বুকে তৈরী হতে চলেছে ভাসমান ক্যাফেটেরিয়া কাম রেস্তোরাঁ 'জলশ্রী'

চন্দননগরে গঙ্গার বুকে তৈরী হতে চলেছে ভাসমান ক্যাফেটেরিয়া কাম রেস্তোরাঁ ‘জলশ্রী’

আসন্ন বিধানসভা ভোটকে মাথায় রেখে তার আগেই পর্যটনের বিকাশে চন্দননগরে গঙ্গার বুকে ভাসমান ক্যাফেটেরিয়া তৈরী হতে চলেছে। একসময় ফরাসী উপনিবেশ গড়ে উঠেছিল চন্দননগরে,



আজও ফরাসী পর্যটকদের কাছে সবসময়ই আর্কষণ থাকে চন্দননগরে। ফরাসি স্থাপত্যের পাশাপাশি এবার এই ভাসমান ক্যাফেটেরিয়াতেও ফরাসি ছোঁয়া পাওয়া যাবে৷ কলকাতায় গঙ্গার বুকে বেশ অনেকদিন ধরেই চালু আছে ভাসমান ফ্লোটেল, এবার রাজ্য পর্যটন উন্নয়ন নিগমের সৌজন্যে চন্দননগরে গড়ে উঠছে ভাসমান ক্যাফেটেরিয়া কাম রেস্তোরাঁ।



শ্রীরামপুরের গঙ্গার ধারে নিশানঘাটে ২৩৪ বছরের পুরনো ‘দ্য ডেনমার্ক ট্যাভার্ন’ পরিনত হয়েছিল ধংসস্তূপে, তা পুনরায় সংস্কার করে নতুন ভাবে শুরু হওয়ার পর ‘দ্য পার্ক’ এর হাতে খাবার পরিবেশনের দায়িত্ব তুলে দেওয়ার পর তা ভালোই জনপ্রিয় হয়েছে,




এবার সেই মতোই চন্দননগরে গঙ্গার ওপর তৈরি হচ্ছে এক ভাসমান ক্যাফেটেরিয়া কাম রেস্তোরাঁ যেখানে নানা ধরনের ফ্রেঞ্চ, টোস্ট, ওয়াটারমেলন সামার স্যালাড সহ একাধিক ফরাসি খাবার মিলবে বলেও জানা গেছে।




এই ভাসমান রেস্তোরাঁর নামও ঠিক হয়ে গেছে। এই ক্যাফেটেরিয়া কাম রেস্তোরাঁ টির নাম দেওয়া হয়েছে ‘জলশ্রী’।
করোনা আবহে রেস্তোরাঁয় এবং পর্যটনে যে বিশাল ক্ষতির মুখে পড়েছে তা থেকে আবার নতুন করে পর্যটনের বিকাশেই এই উদ্যোগ।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

মুক্তি পেলো DEZINIAX STUDIOS -এর প্রযোজনায় স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি “হুলো & মেনি”…

বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দূর্গা পুজো. আর দূর্গা পুজোয় প্রেম হবে না তা কি হয়. এবার পুজোয় তবে "হুলো আর মেনির প্রেম হয়ে যাক? অবাক...

পুজোর মরশুমে ‘মনের মানুষ’ দেবতনু রাজ করতে চলেছে সকলের “হৃদ মাঝারে”!

বর্তমানে পরিস্তিতি উদ্বেগ জনক হলেও বাঙালীরা ৩৬৫ দিন অপেক্ষা করে থাকে এই ৪টি দিনের জন্য। উমা ঘরে আসার সাথে সাথে চারিদিক খুশির আমেজে ভরে...

দাম্পত্য জীবনের প্রথম দূর্গা পুজো! কেমন কাটাচ্ছে অভিনেতা আরুষ এবং পায়েল?

এবিও পত্রিকার তরফ থেকে প্রথমেই আরুষ এবং পায়েল কে জানাই শুভ শারদীয়ার প্রীতি ও শুভেচ্ছা। গত বছর ২৭ নভেম্বর ২০২০ তে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছে...

Klikk এর পক্ষ থেকে মুক্তি পেলো আরো একটি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি “আগমনী”…

বাঙালীর শ্রেষ্ঠ উৎসব দূর্গা পূজা। ৩৬৫ দিন বাঙালীরা অপেক্ষা করে থাকে এই ৪টি দিনের জন্য। উমা ফেরে তার মায়ের ঘরে। চারিদিক মেতে ওঠে উৎসবের...