Home জেলার খবর সামনেই জগদ্ধাত্রী পুজো! চন্দননগরের শোভাযাত্রা নিয়ে কি কি নির্দেশিকা জারি করল প্রশাসন,...

সামনেই জগদ্ধাত্রী পুজো! চন্দননগরের শোভাযাত্রা নিয়ে কি কি নির্দেশিকা জারি করল প্রশাসন, জেনে নিন

চারিদিকে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, উৎসবের মরশুমে সেই সংখ্যা যাতে হু হু করে না বেড়ে যায় সেই জন্য আগেই ঠিক হয়েছিল এবছর চন্দননগরে জগদ্ধাত্রীপুজো হবে নিয়মরক্ষার।
কৃষ্ণনগরেও এবছর নিয়মরক্ষার পুজো হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হল।

চন্দননগর এবং কৃষ্ণনগরে পুজো আয়োজন কেমন হবে তা নিয়ে নির্দেশিকা দেওয়ার পাশাপাশি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে বিসর্জনের নির্দেশিকাও।



চন্দননগরে শোভাযাত্রা করে ঘট বিসর্জন এবছর হবে না। তবে একাধিক নিয়ম মেনে কৃষ্ণনগরে ঘট বিসর্জন হবে বলেই জানানো হয়েছে।

প্রশাসনের সাথে পুজো উদ্যোক্তাদের বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে দুর্গাপুজোয় যেমন পুজো কমিটির সদস্য ছাড়া কেউ মণ্ডপে প্রবেশ করতে পারেনি, জগদ্ধাত্রী পুজোতেই তেমনই হবে।



মণ্ডপ রাখা হবে খোলামেলা, মণ্ডপে যাতে অঞ্জলি না দেওয়া হয় সেদিকটা দেখার জন্য উদ্যোক্তাদের অনুরোধ জানানো হয়েছে।
মণ্ডপে থাকতে পারবেন সর্বোচ্চ ১০ জন ঢাকি। পুজো উদ্যোক্তাদের মধ্যে একসাথে ২৫ জনের বেশি ঢুকতে পারবেন না।
কৃষ্ণনগরে দশমীর দিন দুপুর ২ টো থেকে রাত ৯ টার মধ্যে
পুজো কমিটি গুলিকে ঘট বিসর্জনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের তরফে।



কাঁধে করে প্রতিমা নেওয়া গেলেও প্রত্যেক পুজো কমিটির কে কখন বিসর্জন দেবে প্রশাসন তা পূর্বেই ঠিক করে রাখবে। নির্ধারিত সময়ের আগে বা পরে ঘট বিসর্জন করা যাবে না বলেই স্পষ্টত জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...