Home জেলার খবর হুগলী জেলার বিখ্যাত তারকেশ্বর মন্দির কিভাবে গড়ে উঠল জেনে নিন বিস্তারিত...

হুগলী জেলার বিখ্যাত তারকেশ্বর মন্দির কিভাবে গড়ে উঠল জেনে নিন বিস্তারিত…

তারকেশ্বরের পূজিত মহাদেব
ভীষণ জাগ্রত, মহাদেবের আগমন কিভাবে হল, তা বলতে গেলে ফিরে যেতে হয় বহু পূর্বে, প্রাচীন সিন্ধু সভ্যতায়, যেখানে একটি সুঠাম পুরুষ মূর্তি পাওয়া গেছিল যা ছিল পশু দ্বারা আবৃত, যাকে ‘পশুপতি শিব’ বলে বলেছিলেন ঐতিহাসিক ব্যাসাম। যদিও এই নিয়ে মতপার্থক্য আছে।



সিন্ধু সভ্যতার উৎখননের সময় বিশাল পরিমান লিঙ্গ পাওয়ায় ধরা হয় অনেক আগে থেকেই প্রচলিত ছিল লিঙ্গের পুজা। অর্থবেদ, পাণিনির অষ্টাধ্যায়ী, পতঞ্জলির মহাভাষ্যেও পাওয়া গেছিল শিবের নাম।
এছাড়াও বিভিন্ন বৌদ্ধ সাহিত্যেও শিবের নাম পাওয়া যায়। শিব নামটির উৎপত্তি রক্তবর্ণ যা তামিল শব্দ শিব্বপ্পু থেকে এসেছে। হিন্দুধর্মের মূল স্তম্ভ ব্রহ্মা, বিষ্ণু ও শিবের মধ্যে প্রধান শিব। শিবের ১০৮ নামের মধ্যে অন্যতম হল – মহাদেব, শিব, শম্ভু, নটরাজ, পশুপতি, নীলকন্ঠ, চিন্তামণি, মহেশ্বর, সতীপতি, ত্রিপুরারি, তীর্থরাজ, যোগীশ্বর ইত্যাদি।



প্রসিদ্ধ হিন্দু তীর্থক্ষেত্র তারকেশ্বর, যেখানে রাজ্যের সর্বাপেক্ষা গুরুত্বপূর্ণ শিবমন্দিরটি অবস্থিত।

এই মন্দির গড়ে ওঠার পেছনে কাহিনিটা হল অযোধ্যা থেকে বাবার এক ভক্ত বিষ্ণুদাস হুগলিতে এসে বসবাস শুরু করেন, তবে এলাকার লোকজন তাকে সন্দেহ করতেন, একঘরে করে রাখতেন, সকলের বিশ্বাস অর্জনে তাকে পরীক্ষা দিতে হয়, সকলের কথা মতো শক্ত লোহার দন্ড খালি হাতে ধরতে হয় তাকে, একাজ করতে গিয়ে ভীষণভাবে আহত হিন তিনি, তখন তিনি ইষ্ট দেবতা শিবের নাম যপ করেন, দিনকয়েক পর তার ভাই দেখেন প্রতিদিন গরুরা জঙ্গলের একটি স্থানে দুধ দিয়ে আসে, সেখানে গিয়ে দেখা যায় একটি পাথর আছে। ওই সময় বিষ্ণুপুর স্বপ্নাদেশে মাধ্যমে জানতে পারেন ওই স্থানে মহাদেবের মূর্তি আছে। পরবর্তীতে সেই স্থানে তারকেশ্বর মন্দির গড়ে ওঠে।



পাথর রুপে থাকা লিঙ্গটি সয়ম্ভু লিঙ্গ নামে পরিচিত, প্রতি মাসের রবিবার ও সোমবার ছাড়া শিবরাত্রি ও শ্রাবণ এবং চৈত্র মাসে বাবার ভক্তদের ভিড় দেখা যায় এই স্থানে। মন্দিরের সামনে থাকা দুধ পুকুরে স্নান করে শিবের মাথায় জল ঢাললে পূণ্য অর্জন হয়।
তারকেশ্বর যেতে হলে হাওড়া থেকে তারকেশ্বর স্টেশনে পৌঁছে দশ মিনিট হাঁটা পথে পৌঁছানো যাবে শিবের মন্দিরে। ধর্মাতলা থেকে বাসে অথবা গাড়িতেও যাওয়া যায় তারকেশ্বর।



নির্দিষ্ট টাকা দিয়ে কুপন কেটে ভোগ প্রসাদ খাওয়া যায়, এছাড়া মন্দিরের বাইরেও অনেক খাবারের দোকান আছে, থাকার জন্য আছে বিভিন্ন লজ, গাড়ি পার্কিংয়ের
ব্যবস্থাও আছে।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

মায়ের মৃত্যুদিনে পথ পশুদের কল্যাণার্থে পারমিতা মুন্সী ভট্টাচার্য এর পরিচালনায় হয়ে গেলো ‘বর্ষ বরণে বিবিয়ানা’

পথপশুদের কল্যাণার্থে শিবানী মুন্সী প্রোডাকশনের 'বর্ষবরণে বিবিয়ানা' শীর্ষক বাংলা নববর্ষের ক্যালেন্ডার প্রকাশ হয়ে গেল। এই ক্যালেন্ডার থেকে সংগৃহীত অর্থ খরচ করা হবে পথ পশুদের...

কি করলে আপনাকে বা আপনার পরিবারকে ছুঁতে পারবেনা করোনা

বর্তমানের ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে নিস্তার পাওয়াটাই এখন সকল মানুষের একমাত্র লক্ষ্য. কিন্তু কিভাবে পাবো এই ভয়ানক কোবিড ১৯ এর হাত থেকে মুক্তি? কোবিড ১৯ ভাইরাস...

অতিমারির মধ্যেও প্রকৃতির আরো কাছে ফিরে যাচ্ছেন জয়া আহসান..

করোনা নামক ভয়ঙ্কর ভাইরাস বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। কিন্তু শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে তার কণ্ঠে বিষন্নতা রয়েছে। চারিদিকে...

চারিদিকে অক্সিজেনের হাহাকার, এই পরিস্থিতিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন টলি তারকারা…

গোটা বিশ্ব আজ করোনা মহামারীর কবলে। Covid এর দ্বিতীয় ঢেউ তে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ সাথে মৃত্যু। করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে এই প্রথম দৈনিক সংক্রমণ বেড়ে...