Home জেলার খবর শ্রীরামপুরে ঐতিহ্যশালী পূজোর মধ্যে অন্যতম দে' বাড়ির দুর্গোৎসব। কেনো ঐতিহ্যশালী এই পূজো?

শ্রীরামপুরে ঐতিহ্যশালী পূজোর মধ্যে অন্যতম দে’ বাড়ির দুর্গোৎসব। কেনো ঐতিহ্যশালী এই পূজো?

শ্রীরামপুরে ঐতিহ্যশালী পুজো গুলির মধ্যে অন্যতম দে’ বাড়ির দুর্গোৎসব,যেখানে মায়ের সন্তান চারশো জন ৪০০ র বেশি সন্তান একসাথে মা’য়ের পুজোয় আনন্দে মেতে ওঠে, মা তার চারশোর অধিক সন্তানকে নিয়ে বসবাস করছেন। মায়ের টানেই তারা একসাথে আছে। শুনতে অবাক লাগলেও সত্যি, সকল সন্তানরা একসাথে মিলে মায়ের পুজোয় সামিল হন।
শ্রীরামপুরের দে বাড়ির ঘটনা এটি।



যেখানে বর্তমান সময়ে অনেকেই একান্নবর্তি ধারণাটি ভুলতে বসেছে সেই সময়
শ্রীরামপুরের দে বাড়ির সদস্যের সংখ্যা চারশোর বেশি। আর তাদের জীবনকে এক সুতোয় বেধে রেখেছে মা দুর্গা।

কয়েক বছর আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় একটি ছবি যেখানে দেখা যায়, টেনিস কোর্টের সামনে বিশাল বড় ঠাকুরদালান সেখানে বিজয়া দশমীর দিন দেবী দুর্গাকে বরণ করছেন একশো জনের বেশি।



এই বাড়ির পুজো শুরু হয় রথযাত্রার দিন কাঠামো পুজোর মাধ্যমে। চক্ষুদান হয় মহালয়ায়। মহালয়ার পরের দিন থেকে শুরু হয়ে যায় মিষ্টি তৈরী যা মা’কে নিবেদন করা হয়।
শ্রীরামপুরের এই দুর্গা পুজো চলছে ২৬৯ বছর ধরে, সারাবছর যে যার কাজে ব্যস্ত থাকলেও পুজোর কটা দিন সকলে মিলে আনন্দ করে।



মায়ের টানেই ৪০০ জন একসাথে একই বাড়িতে বসবাস করছে। তবে আগে যেমন জাঁকজমক করে পুজো হতো এখন তেমনটা হয় না।

ষষ্ঠী ও দশমীর দেবীবরণ হয় দেখার মতো যেখানে প্রায় একশোর কাছাকাছি কূলবধূ মা’কে বরণ করেন। ধুনো পোড়ান বাড়ির বড়রা। অষ্টমীতেও হয় ধুনো পোড়ানো, নবনীর ‘বেড়াঞ্জলি’ তে বাড়ির পুত্র-পুত্রবধূরা মা কে প্রদক্ষিণ করে বিয়ের জোড় ও বেনারসী পড়ে এবং অঞ্জলি দেয়। এটিও একটি বিশেষ অনুষ্ঠান এই বাড়ির পুজোয়।



হুগলী জেলার শ্রীরামপুরে ঐতিহ্যশালী পুজো গুলির মধ্যে অন্যতম দে’ বাড়ির দুর্গোৎসব। আগের মতো জমিদারি প্রতিপত্তি এখন না থাকলেও পুজোতে নিষ্ঠা এবং সকলের মিলে মা’কি ঘিরে যে আনন্দ তা একটুও কম হয়নি।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

মায়ের মৃত্যুদিনে পথ পশুদের কল্যাণার্থে পারমিতা মুন্সী ভট্টাচার্য এর পরিচালনায় হয়ে গেলো ‘বর্ষ বরণে বিবিয়ানা’

পথপশুদের কল্যাণার্থে শিবানী মুন্সী প্রোডাকশনের 'বর্ষবরণে বিবিয়ানা' শীর্ষক বাংলা নববর্ষের ক্যালেন্ডার প্রকাশ হয়ে গেল। এই ক্যালেন্ডার থেকে সংগৃহীত অর্থ খরচ করা হবে পথ পশুদের...

কি করলে আপনাকে বা আপনার পরিবারকে ছুঁতে পারবেনা করোনা

বর্তমানের ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে নিস্তার পাওয়াটাই এখন সকল মানুষের একমাত্র লক্ষ্য. কিন্তু কিভাবে পাবো এই ভয়ানক কোবিড ১৯ এর হাত থেকে মুক্তি? কোবিড ১৯ ভাইরাস...

অতিমারির মধ্যেও প্রকৃতির আরো কাছে ফিরে যাচ্ছেন জয়া আহসান..

করোনা নামক ভয়ঙ্কর ভাইরাস বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। সকলকে নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী জয়া আহসান। কিন্তু শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে তার কণ্ঠে বিষন্নতা রয়েছে। চারিদিকে...

চারিদিকে অক্সিজেনের হাহাকার, এই পরিস্থিতিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিলেন টলি তারকারা…

গোটা বিশ্ব আজ করোনা মহামারীর কবলে। Covid এর দ্বিতীয় ঢেউ তে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ সাথে মৃত্যু। করোনার দ্বিতীয় ঢেউতে এই প্রথম দৈনিক সংক্রমণ বেড়ে...