Home দেশ চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে অনটনে কোভিড আক্রান্ত মৃতদেহের সৎকারের কাজ করছে দ্বাদশ...

চিকিৎসক হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে অনটনে কোভিড আক্রান্ত মৃতদেহের সৎকারের কাজ করছে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র

স্বপ্ন চিকিৎসক হওয়ার, কিন্তু বর্তমানে অর্থাভাবে করোনায় মৃতদেহদের দাহে শ্মশানে কাজ করছে দিল্লির বাসিন্দা চাঁদ মহম্মদ।

উত্তরপূর্ব দিল্লির সিলামপুরের বাসিন্দা চাঁদ, অভাবী সংসারে মায়ের চিকিৎসা থেকে বোনেদের স্কুল ফি, সমস্ত দায়িত্ব নিতে এই কাজই করতে হচ্ছে তাকে। এতদিন দাদার রোজগার থাকলেও লকডাউনে কাজ হারিয়েছেন তার দাদা। প্রতিবেশী দের সাহায্যে আর নিজেদের সামান্য রোজগারে কোনওরকমে দিন কাটছিল,
ভয়, সংশয় সত্বেও মেডিসিন নিয়ে পড়তে চাওয়া, উজ্জ্বল এক ভবিষ্যতের স্বপ্ন চোখে নিয়ে চাঁদ মহম্মদ মন দিয়েই দেহ সৎকারের কাজ করছে।

কয়েক সপ্তাহ আগে চাঁদ মহম্মদ দিল্লির লোকনায়ক জয়প্রকাশ নারায়ণ হাসপাতালে ঝাড়ুদারের কাজ নিয়ে ঢোকে,১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত থাকতে হত হাসপাতালে সেই সূত্রেই করোনাভাইরাসে মৃত সৎকারের কাজ পায়। চাঁদ জানিয়েছে ভীষণ দরকার ছিল একটা কাজের, রাস্তাই ছিল না অগত্যা ঝুঁকি নিয়েই পরিবারের অর্থাভাব কিছুটা লাঘব করতে,মায়ের ওষুধ,সকলের খাবার, বোনেদের স্কুল ফি, জোগাড়ে ভরসা এই কাজই। তার পরিবারের সকলেই খুব চিন্তিত তার কাজ নিয়ে।
সর্বশক্তিমানের উপরে ভরসা রেখে সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়েই প্রতিদিন বেশ কয়েকটি দেহ সৎকারের এই কাজে তার পারিশ্রমিক মাসে ১৭ হাজার টাকা।
দেহ অ্যাম্বুলেন্সে তুলে শ্মশানে নিয়ে যাওয়া থেকে পুরো কাজ করতে হয় পিপিই পরে, ভারী পিপিই পরে কাজ করতে দমবন্ধ লাগলেও কষ্ট সহ্য করেই তাকে করতে হবে এই ঝুঁকিপূর্ণ কাজ ।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...