Home রান্নাঘর বিরিয়ানির বিশাল হাঁড়িতে লাল কাপড় কেন ব্যবহার করা হয় জানেন? জেনে নিন...

বিরিয়ানির বিশাল হাঁড়িতে লাল কাপড় কেন ব্যবহার করা হয় জানেন? জেনে নিন এর পেছনে থাকা কারণ

বিরিয়ানির আগমন ভারতে
সেই মুঘল আমলে। কিন্তু বিরিয়ানির বিশাল হাঁড়িতে কেন লাল শালু ব্যবহার করা হয় জানেন কি। এই প্রথা লখনউয়ের নবাবরা মেনে আসছেন বহুযুগ ধরে।
বিরিয়ানিতে নবাবিয়ানা অভিজাত্য, বনেদিয়ানা এবং উষ্ণতার কারণে বহু যুগ থেকে লাল বা লাল শালুর ব্যবহার করা হয়।



১৮৫৬ সালের ৬ মে সেই যে কলকাতায় আসেন নবাব ওয়াজিদ আলি শাহ তারপর থেকে ৩০ বছর কলকাতাতেই ছিলেন তিনি। ওয়াজিদ আলিই প্রথম কলকাতার মানুষকে বিরিয়ানির স্বাদের সঙ্গে পরিচয় করান।

লখনউর নবাব ওয়াজিদ আলি শাহ জন্যই নাকি বিরিয়ানিতে আলুর চল শুরু হয়ে অনেকে বলে থাকেন। বিরিয়ানির স্বাদ নাকে আসলেই মানুষের বিরিয়ানিপ্রেম জেগে ওঠে, বিরিয়ানি পাগল মানুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়।



যত দিন যাচ্ছে বিরিয়ানির প্রতি বাঙালিদের ভালোবাসা আরও বেড়ে যাচ্ছে। কলকাতা শহরের বিভিন্ন স্থানেই এখন বিরিয়ানির দোকান, সকলেই নিশ্চয়ই দেখেছেন বিরিয়ানির বিশাল হাঁড়িতে থাকে লাল কাপড়। অনেকেই রেস্টুরেন্ট হোক বা দোকানে বিরিয়ানি দেখলে আর কিছু অর্ডারই করতে চান না।
শুধু যে চিকেন বা মটন বিরিয়ানির চল বেশি তা কিন্তু নয় আজকাল ডিম, আলু বা ভেজ সব বিরিয়ানিই মানুষ পছন্দ করছেন আর এই প্রত্যেক ধরনের বিরিয়ানির পাত্রই লাল কাপড়ে মোড়া থাকে।

অনেকেই হয়ত এখন মনে করে দেখছেন হ্যাঁ ঠিকই তো! নজর পড়লেও অত গুরুত্ব দিয়ে ভাবেন নি এর কারণ।




প্রত্যেকটি রংয়েরও আলাদা আলাদা ভাষা আছে। প্রত্যেক দেশে লাল রঙের ভাষা, লাল রঙের ব্যবহার ভিন্ন।

ভারতে লাল রঙ প্রচলিত ভালোবাস, সৌভাগ্য, আনন্দ, উৎসবের রঙ হিসেবে। এমনকি উষ্ণ অভ্যর্থনা প্রকাশেও ব্যবহৃত হয় লাল রং।

ইতিহাস থেকে জানা যায় সম্রাট হুমায়ুনের প্রচলিত ‘দরবারি রীতি’ যা খাদ্য পরিবেশনে ব্যবহার হত সেখানে রুপোলি পাত্রের খাবারগুলির সবসময় লাল কাপড়ে ঢেকে আনা হত। যা পরবর্তীতে মুঘল দরবারেও অনুসরণ করা হত। এমনকি লখনউয়ের নবাবরাও এই খাদ্য পরিবেশন রীতিকে অনুসরণ করতেন। তখন থেকেই বিরিয়ানির পাত্র ঢাকা থাকে লাল কাপড়ে যা যুগ যুগ ধরে চলে আসছে।




তবে এই ধারণাকে অনেকে ভুল মনে করে, অনেকেই ইতিহাস বা ঐতিহ্যের রীতি নয় বরং ব্যবসার জন্যই এই লাল কাপড়ের ব্যবহার বলে মনে করেন। কারণ লাল কাপড় দূর থেকে ক্রেতার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সমর্থ হয়।

তবে কারণ যেটাই হোক বিরিয়ানি প্রেম যে মানুষের কোনো কালেই কমবে না বরং মানুষের বিরিয়ানি প্রেম দিন দিন আরও বাড়বে তা নিঃসন্দেহে বলাই যায় এবং বিরিয়ানি সাথেই বিরিয়ানির আলুর প্রতি মানুষের যে নিঃস্বার্থ ভালোবাসা বেড়েই চলছে তাও কিন্তু উল্লেখ করতেই হয়।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

শুরু হয়ে গেলো দেব রুক্মিনীর ভালোবাসার নতুন সফর! “কিশমিশ”-এর শুভ মহরত…

বড়ো পর্দায় চ্যাম্প, কিডন্যাপ, ককপিট, কবীর, পাসওয়ার্ড এর মতো ছবিতে একসঙ্গে দেখা মিলেছে দেব রুক্মিণী জুটির. এবার ষষ্ঠ বার সিলভার স্ক্রিনে জুটি বাঁধতে চলেছেন...

ঘুম থেকে উঠে মানুন কিছু ছোট্ট টোটকা….

ফর্সা হতে চান! ঘুম থেকে উঠে মানুন কিছু ছোট্ট টোটকা এখন কেবল নারীরা নয়, পুরুষরাও নিজেকে সভান সুন্দর ও আকর্ষনীয় দেখাতে আগ্রহী। নিজেকে ফর্সা ও...

অতনু ঘোষের ছবি ‘শেষ পাতায়’ থাকছেন প্রসেনজিৎ-গার্গী-বিক্রম…

এই অতিমারীর পরিস্তিতি স্বাভাবিক হলেই ছন্দে ফিরবে টলিউড ইন্ডাস্ট্রি. পরবর্তী ছবির ঘোষণা করলেন পরিচালক অতনু ঘোষ. 'ময়ূরাক্ষী', 'রবিবার' এর পর অতনু ঘোষের "শেষ পাতা"...

অঙ্গ দান করলেন অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা সরকার…

এই করোনা পরিস্তিতিতে আগের বছর থেকেই বিভিন্ন অভিনেতা অভিনেত্রীদের দেখা গেছে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে. কিন্তু এবার এক অভিনব প্রয়াস অঙ্গ দান করতে এগিয়ে...