Home জেলার খবর শেওড়াফুলিতে মানুষের মধ্যে সচেতনতাকে পুনর্জাগরিত করতে পথে নেমেছে চেতনা

শেওড়াফুলিতে মানুষের মধ্যে সচেতনতাকে পুনর্জাগরিত করতে পথে নেমেছে চেতনা

সচেতনতা বাড়াতে পথে নামলো চেতনা

কোরোনা মহামারীর কবলে পরে চেনা পৃথিবীটাও আজ কেমন অচেনা হয়ে উঠেছে। এর মধ্যেই বাংলার মানুষের চাপটা আরও একটু বাড়িয়ে তুলেছিলো আমফান। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বহু পরিবার। বিগত মাস তিন চারেক গৃহ বন্দি হয়ে থাকতে হয়েছে মানুষকে। তার ফলে ভেঙে পরেছে মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা, সংসার চালানো হয়ে পরেছে মুশকিল। মানুষের এই দুরবস্থার কথা ভেবে রাজ্য সরকার এই লকডাউনকে একটু শিথিল করার নির্দেশ দেন, পাশপাশি সচেতনতা বজায় রাখার কথাও বলেন। কিন্তু মানুষ এতদিন গৃহবন্দি হয়ে থাকার পর যখনই একটু খোলা আকাশ দেখার সুযোগ পেলো, ব্যাস….
সচেতনতা শিকেই তুলে কোরোনা’র কথা ভুলে ঠিক আগের মতই সাধারণ জীবন যাপন শুরু করে দিয়েছে। বেশিরভাগ মানুষকেই দেখা যাচ্ছে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রেখেই বিনা মাস্কে দিব্যি ঘুরে বেড়াতে। তাই মানুষকে এই বিপদের দিনে মানুষকে সচেতন করতে শেওড়াফুলি অঞ্চলে পথ প্রচারে নেমেছে স্বেচ্চাসেবী সংগঠন “চেতনা”।
শুধু তাই নয় মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে তারা সাথে নিয়ে বেড়িয়েছেন জ্বলজ্যান্ত কোরোনা ভাইরাস কেই। অবাক হলেন? তাহলে দেখে নিন চেতনা’র প্রতিষ্ঠাতা নীলাদ্রি দে মহাশয়ের পাশে দাড়িয়ে থাকা আস্ত কোরোনা ভাইরাস সাজা মানুষটিকে নিচের ছবিতে।


চেতনা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা নিলাদ্রি দে আমাদের জানান যে মানুষকে সচেতন করতেই তাদের এই উদ্যোগ। মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি তারা মাস্ক ও তুলে দেন বহু মানুষের হাতে। তিনি আরও জানান শুধু শেওড়াফুলি নয় আমাদের রাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চলে তারা তাদের এই সচেতনতা অভিজান চালাবেন আগামী দিনে।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...