Home উৎসব প্রথা অনুসারে মাথায় ঘোমটা দিয়ে জগদ্ধাত্রী পুজোয় দেবীকে বরণ করেন ভদ্রেশ্বরের পুরুষেরা...

প্রথা অনুসারে মাথায় ঘোমটা দিয়ে জগদ্ধাত্রী পুজোয় দেবীকে বরণ করেন ভদ্রেশ্বরের পুরুষেরা…

বহু প্রাচীন ভদ্রেশ্বরের তেঁতুল তলা জগদ্ধাত্রী পূজো। যাকে বুড়িমাও বলা হয়। এই পূজোর এক প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী প্রথা হলো এখানে দেবী জগদ্ধাত্রী কে বরণ করেন পুরুষেরা। তাও শাড়ি পরে মাথায় ঘোমটা দিয়ে সমস্ত বিধি নিয়ম মেনে। এই প্রচলিত প্রথা দেখতে শুধু জেলা নয় রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মানুষ এসে ভিড় জমায়। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে এবারের পূজো তেমন জাঁকজমক করে হয় নি সেরকমই আবার বরণ পালাও মেটানো হলো বিধি নিয়ম অনুযায়ী।




দশমীর দিন বিবাহিত মহিলারা নন পুরুষেরা মাথায় ঘোমটা দিয়ে জগদ্ধাত্রী মায়ের বরণ করেন এমনই রীতি ভদ্রেশ্বরের তেঁতুল তলা জগদ্ধাত্রী পূজা প্রাঙ্গণে।




করোনা আবহে বিধি নিয়ম, জাঁকজমক এ প্রভাব পড়েছে কিন্তু দেবী বরণের ঐতিহ্য ক্ষুণ্ণ হয় নি, প্রাচীন রীতি এখনো প্রবাহমান।



ভদ্রেশ্বরের তেঁতুল তলা সর্বজনীন জগদ্ধাত্রী পূজো প্রচলন করেন শূর পরিবার। শূর পরিবারে পূর্ব পুরুষ দাতারাম শূরের পরের প্রজন্ম এই পূজোর ব্যয় ভার বহনে অক্ষম হয়ে পড়েন তখন এই পূজো বারোয়ারী হয়ে পরে। কিন্তু তখন কার প্রজন্মে মহিলারা ঘরের বাইরে এসে দেবীবরণ করবেন এরকম সম্ভব ছিল না। কিন্তু এই কারণে দেবীবরণ হবে না?



সেই মুহূর্তে এগিয়ে আসে পুরুষেরা। তারা মহিলাদের মত শাড়ি পরে মাথায় ঘোমটা দিয়ে দেবীকে বরন করতে শুরু করলেন। সেই থেকেই আজ পর্যন্ত সেই প্রথাই প্রচলিত আছে।

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...