Home দেশ মোটরবাইকে ঘুরে ঘুরে সকাল থেকে রাত এলাকার বাচ্চাদের পড়াচ্ছেন এক ব্যক্তি...

মোটরবাইকে ঘুরে ঘুরে সকাল থেকে রাত এলাকার বাচ্চাদের পড়াচ্ছেন এক ব্যক্তি…

করোনা সংক্রমণের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ স্কুল, তবে বিকল্প হিসেবে ক্লাস হচ্ছে ডিজিটাল মাধ্যমে, শহরাঞ্চলে এভাবে ক্লাস ঠিক ঠাক চললেও প্রত্যন্ত গ্রামে মোবাইল দেখা যায় খুব কম মানুষের কাছে, সেখানে কম্পিউটার , ইন্টারনেট, ল্যাপটপ কী তাই অনেকে জানেন না, যেখানে কেউ ঠিকা কাজ করে কোনওরকমে সংসার চালায় তো কেউ লকডাউনে কাজ হারিয়ে ফেলেছে, এমন গ্রামগুলিতে অনলাইন ক্লাসের থেকে দুমুঠো ভাত জোগাড় করা বেশি গুরুত্বপূর্ণ তাদের কাছে।

তবে দুঃস্থ পরিবারের বাচ্চাদের শিক্ষায় যাতে কোনো ক্ষতি না হয় তাই এক শিক্ষক ঘুরে ঘুরে নিজের শিক্ষা জ্ঞান ছড়িয়ে দিচ্ছে এলাকার বাচ্চাদের মধ্যে।



ছত্তীসগড়ের কোরিয়া জেলার রুদ্র রানা নামের এক শিক্ষক
মোটরবাইক এ বোর্ড লাগিয়ে অঙ্ক, ভূগোল, বিজ্ঞান, ইতিহাস পড়াচ্ছেন বাচ্চাদের।

রোজ সকাল থেকেই শুরু হয়ে যায় তার বাড়ি বাড়ি ঘুরে বাচ্চাদের জড়ো করে ক্লাস নেওয়া। সারাদিন বিভিন্ন এলাকায় ক্লাস নেন তিনি,এই ‘মহল্লা’ ক্লাসের জন্য কিন্তু
কোনো পারিশ্রমিক নেন না রুদ্র স্যর।
দীর্ঘদিন ধরে স্কুল বন্ধ থাকায় বাচ্চাদের যাতে পড়াশোনায় ক্ষতি না হয় সেই দায়িত্বভার নিজের কাঁধে তুলে বাড়ি বাড়ি গিয়ে পড়িয়ে আসছেন তিনি। বাচ্চাদের শুধু পড়ানোই নয় পাশাপাশি বইখাতা, খাবার, লজেন্স কিনে দেওয়া এসবও করছেন তিনি।



পড়াশোনাতে যাতে বাচ্চাদের ভয় না হয়, বরং আগ্রহ বাড়ে তাই রঙবেরঙের বই দিয়ে বাচ্চাদের পড়ায় রুদ্র স্যার। ছোট থেকে যাতে তারা শিক্ষাকে ভালোবাসে সেই প্রচেষ্টায় ব্রতী তিনি।



ছত্তীসগড়ের প্রত্যন্ত গ্রামগুলোয় যেখানে শিক্ষার আলো এখনও নেই বরং কৈশোর থেকে রোজগারের জন্য বেরিয়ে যায় এলাকার ছেলেরা, মেয়েরা পায় না পড়ার সুযোগ সেই স্থানে শিক্ষিত নয় এলাকার মানুষ যাতে মহাজনদের কাছে না ঠকে, নিজেদের পরিশ্রমের ন্যায্য পাওনা আদায় করতে পারে তাই গ্রামের ছেলেমেয়েদের পড়াশোনায় আগ্রহী করে তুলতে চেষ্ঠা করছেন তিনি৷ কারণ তিনি জানেন শিক্ষাই পারে কুসংস্কার দূর করে অন্ধকার থেকে আলোর দিকে নিয়ে আসতে৷

- Advertisment -

জনপ্রিয়

সরস্বতী নাট্যোৎসবের দ্বিতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হতে চলেছে উত্তর চব্বিশ পরগনার অশোকনগরে

করোনা প্রকোপ খানিক শান্ত হতে না হতেই এই শীতের মরসুমে নাট্যপিপাসু দর্শকদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের বিষয় কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন প্রান্তে অনুষ্ঠিত হওয়া নাট্যোৎসবে...

“পাই” এর উৎসবে মাতলো কলকাতা। ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি পর্যন্ত চললো সেলিব্রেশন

কলকাতায় গল্ফগ্রীনে পুরো সপ্তাহ ধরে চললো "পাইয়ের উৎসব"। "দ্য পাই হাউসের" পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক পাই ডে উপলক্ষে ২০ থেকে ২৬ শে জানুয়ারি সেলিব্রেট করা...

কলকাতা প্রেক্ষাপট এর নাট্য – পার্বণ

ভারতীয় সংকৃতির পীঠস্থান আমাদের এই বাংলা । নাট্যচর্চা বাংলার তথা ভারতীয় সংস্কৃতির এক অভূতপূর্ব ধারাকে বহন করে নিয়ে চলেছে প্রাচীনকাল থেকেই । বরাবরই বিভিন্ন...

সুযোগ পেলে আমিও স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করাবো” বললেন দিলীপ ঘোষ

মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নে এবার সামিল রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেছেন দিলীপ ঘোষ ও তার পরিবার এমনই দাবি করলেন বীরভূম...